ফেসবুকে আমার ইনকাম। Monetization Enable On My Facebook Page

Earning : ৳6.000

আমার একটা ভিডিও ফেসবুক এ মাত্র চার দিনে 1.1M ১ মিলিয়ন অর্থাৎ দশ লাখ ভিউস সম্পরন করে আসসালাম ওলাইকম একটা সময় ফেসবুক থেকে ইনকাম করা টা আমার কাছে স্বপ্নের মতো মনে হতো।

আমাদের চ্যানেলটি সাবসক্রাইব করুন

কারন আমি যখন দেখে ছিলাম ফেসবুক এ মনিটাইজেশন পেতে হলে দুই মাসের ভিতরে ৬০০০০০ মিনিট। 

ওয়াচ টাইম কমপ্লিট করতে হবে এবং সাথে দশ হাজার Followers ও থাকতে হবে যেখানে আমাদের ইউটিউব এ মনিটাইজেশন পেতে হলে ১২ মাসের ভিতরে।

অর্থাৎ  বছরের ভিতরে ৪০০০ ঘন্টা মানে  ২৪০০০০ মিনিট ওয়াচ টাইম কমপ্লিট করতে হচ্ছে এবং সাথে ১০০০ হাজার সাবস্ক্রাইবার থাকতে হচ্ছে।

তাই ইউটিউব এর থেকে কিন্তু ফেসবুক এর সংখ্যা টা অনেক বেশি মাঝে মাঝে মনে হতো ফেসবুক এর ফাজলামো মনে হতো এটা কিন্তু আমার সেই স্বপ্ন টা বাস্তবে রূপ দেয়।

বাস একটা ভিডিও তে ২০২২ সালের গত মার্চ মাসের ১৫ তারিখে আমি আমার পেজে একটা প্রোজেক্টরের ভিডিও আপলোড জে ভিডিও টা আপলোড  করার সাথে সাথে ভাইরাল হয়ে যায়।

জার ফোলে এই আমাদের পেজে ৬০০০০০ লাখ মিনিট ওয়াচ টাইম সম্পূর্ণ হয়েছে মাত্র দুই দিনের ভিতরে এবং এই ভিডিও টা আপলোড করার ঠিক ৪ দিনের মাথায় দশ হাজার Followers ও সম্পূর্ণ ঠিক ৫ দিনের দিন আমি মনিটাইজেশনের জন্য ফেসবুক এর কাছে আবেদন করি।

এবং আবেদন করার ১০ থেকে ১৫  মিনিটের মাঝে ফেসবুক আমাকে মনিটাইজেশন দিয়ে দেয় এবং তার পর পরই ফেসবুক থেকে আমার ইনকাম ও শুরু হয়ে জায়।

কথা গুলো শুনতে আপনাদের কাছে যতো টুকু সহজ মনে হচ্ছে আমার কিন্তু বলতে এতো টা সহজ মনে হয়েছে কিন্তু আমার এর পিছনের গল্প টা কিন্তু এতো টা সহজ না।

আমার এই পেজ টা খোলা হয় ফেব্রুয়ারী ৫ তারিখে ফেব্রুয়ারির ৫ তারিখ থেকে মার্চ মাসের ২৫ তারিখ পর্যন্ত এই পেজে Followers ছিলো মনে হয় ৫০ থেকে ৫৭ মতো এরকমই আর ভিউসের সংখ্যা তো আপনারা বুঝতেই পারছেন।

সেখান থেকে একটা পেজ কে এতো বড় প্রতিষ্ঠানে নিয়ে আসা টা কিন্তু আমার কাছে এতো টা সহজ ছিলো না এর পিছনে এক্সপেরিয়েন্স প্লাস ভাজ্ঞ প্লাস।

অনেক নিয়ম কানন মেনে আমাকে এই কাজ করতে হয়েছে আমার কিন্তু এর আগেও জহিরুল টেক ২৪ নামে একটা পেজ ছিলো এবং অলরেডি একটি পেজ আছে যেটাতে কিনা দশ হাজার Followers কমপ্লিট করাও আছে জেটা এখন আমি জহিরুল নামেই রেখে দিয়েছি।

আমার যখন ইউটিউব এর পাশা পাশি ফেসবুক এ কাজ করার আগ্রহ হল তখন আমি ফেসবুক আমার একটা নিজের ছবি ভাই আমার নিজের ছবি আমি আমার পেজে আপলোড করতাম সেটাতেও ফেসবুক এ সমস্যা ফেসবুক আমাকে পলিসি ইসসু দিয়ে দিলো।

মানে আমি বুঝতে পারতাম না জে ভুল টা কথায় ফেসবুক এতো টা পেচানো আরকি একটা জায়গা আপনি যদি এখানে সব কিছু না জেনে সুনে ফেসবুক এ কাজ করতে আসেন।

তাহলে ভাই আমার মতোই মানে আমার অইজে ১০০০০ হাজার Followers একটা পেজ মানে অনারথক মানে এতো দিন যাপক আমি জা কাজ করেছি সব মাটি তে মিশে গেলো মানে আমি আর কি বলবো আপনাদেরকে।

এবং কি এটাই আমার শেষ ছিলো না আমি জে ভাই আরও কতো  পেজ খুললাম আর ডিলিট করলাম আমি হয়তো নিজেও বলে শেষ করতে পারব না।

আরে ভাই আমি নিজেই ভুলে গেলাম জে কতো পেজ খুললাম আর ডিলিট করলাম এক প্লাস আমি জে এখন পেজ টা খুললাম জে মানে এমন বধ্য করেছিলাম জে ফেসবুক জেনো ভুল করেও আমার ভুল না ধরতে পারে।

এবং ঠিক সেই ভাবেই আমি কাজ করেছি তাদের প্রত্যেকটা নিয়ম কানন একদম ভালো ভাবে খুবই নিখুদ ভাবে কাজ করেছি জে কারনে হয়তো এতো Success টা পেয়েছি আমার

যখন কোন কাজ করতে ইচ্ছে হয় তখন আমি এটা মন প্রান দিয়ে করার চেষ্টা এবং সেই কাজ টা সম্পূর্ণ না হক আমার মানে মনের ভিতরে কোন শান্তি হচ্ছে না আমি একদম চেয়েছিলাম।

জে ইউটিউব এ আমার একটা চাহিদা আমি তৈরি করবো এবং সেটা আমি করেছি আমি খুব চাচ্ছিলাম বিশেষ রে খুবই চাচ্ছিলাম জে ফেসবুক এও আমার একটা চাহিদা তৈরি করতে।

যেখান থেকে যেমন আমি টাকা ইনকাম করতে পারবো তেমন আমি জেন মানুষকে কিছু সেখাতে পারি এবং আমি জেটা জানি সেটা জেনো মানুষকে জানাতে পারি।

এবং সেটা আমি করেই ছারবো ইনশাল্লাহ এবং একটা সময় আমার কাছে এটাও মনে হল যে ভিডিও কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের জন্য ইউটিউব এর তুলনায় ফেসবুক এর তুলনাটা অনেক বেশি।

এখানে ৬০০০০০ লাখ মিনিট ওয়াচ টাইম ২ মাসের ভিতরে যদি আপনি ফেসবুক এর সাথে তুলনা করেন সে ক্ষেত্রে কিন্তু এটা অর্জন করাটা ফেসবুক এ অনেক টাই সহজ।

কারন ফেসবুক এ শেয়ার বাটন বলে একটা অপশন আছে একটা ভালো কন্টেন্ট কে ভাইরাল করে দেয়ার জন্য শুধু শেয়ার বাটন টাই জতেস্ট আপনি যদি মন দিয়ে কাজ করতে পারেন।

এবং ভালো কিছু কন্টেন্ট যদি ফেসবুক এ আপলোড করতে পারেন আর আপনার কোপাল টা যদি ভালো থাকে তাহলে দেখা জাচ্ছে আপনি খুব তারা তারি আপনি সাক্সেস পাবেন।

আর ইনকামের কথা বললে ইউটিউব এর কথা বললে ফেসবুক এ ইনকাম টা বেশি কারন ফেসবুক এ ইউটিউব এর তুলনায় অনেক ক্ষেত্রেই বেশি ভিউস পাওয়া যায়।

আর বেশি ভিউস মানেই এড ক্লিক বেশি আর ইনকাম টাও বেশি তবে জারা ইউটিউব এ কাজ করছেন তাদের সবার ই উচিত ইউটিউব এর পাশা পাশি ফেসবুক এও নিজের একটা যায়গা তৈরি করে ফেলা।

আর এখন থেকে ফেসবুক এ একটিভ হওয়া এবং ফেসবুক এ কাজ করা তো আমি চাচ্ছি আপনারা জারা ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম করতে চাচ্ছেন।

তারা জেনো একটা সঠিক আইডিয়া পায় আমি যেমন অনেক ভুল করেছি অনেক রিসার্চ করে ঘাটা ঘাটি করে তারপরে আমার ভুল গুলা আমি সংশোধন করতে পেরেছি কিন্তু আপনাদের জেনো ওই সকল ভুল গুলো না করতে হয়।

ঠিক সেই কারনেই এই ফেসবুক পেজে আমি একটা একটা করে প্লে লিস্ট করবো ফেসবুক টিপস রাখবো এবং এই প্লে লিস্ট টা আমি আমার ইউটিউব চ্যানেলেও করা থাকবে সেই জায়গায় আপনি একটা ফেসবুক পেজ খোলা থেকে সেই পেজে কিভাবে ভিডিও আপলোড করতে হবে।

সঠিক নিয়মে কিভাবে কাজ করবেন মনিটাইজেশনের জন্য কিভাবে আবেদন করবেন কিভাবে টাকা ইনকাম করবেন।

এই সকল বিষয় নিয়ে স্টেপ বাই স্টেপ আমি ক্লিয়ার ভাবে ভিডিও দেয়ার চেস্টা করবো যে ভিডিও গুলো দেখলে কোন টাকা দিয়ে কোর্স কিনে আপনাকে ফেসবুক সম্পর্কে কোন ধারনা নেওয়ার কোন প্রয়োজন হবে না।

সুতরাং সেই ভিডিও গুলো দেখার জন্য অবশ্যই আমাদের ফেসবুক পেজ এবং আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করে রাখবেন এবং আমাদের এই পোস্ট টি অবশ্যই অবশ্যই শেয়ার করবেন।

 দেখা হচ্ছে পরবর্তী কোন একটি পোস্টে সবাই ভালো থাকবেন সুস্ত থাকবেন আল্লাহ হাফেজ।

Related Articles
Comments

You must be logged in to post a comment.