জব কিংবা ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার

Earning : ৳1.200

বন্ধুরা আজকে যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করব তা হল ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারে অথবা জব ক্যারিয়ারে তোমার কি কি বিষয় নিয়ে জানা থাকা দরকার  এবং এগুলো  অবশ্যই তোমার জানতে হবে। 

আমাদের চ্যানেলটি সাবসক্রাইব করুন

 তোমার যে বিষয়গুলো নিয়ে জানা থাকা দরকার বা শেখা দরকার তা নিচে  আলোচনা করা হলো। 

প্রথমেই তোমার জানা থাকা দরকার মাইক্রোসফট অফিসের সবগুলো সফটওয়্যার ।বিশেষ করে এক্সেল এবং পাওয়ার পয়েন্ট সম্পর্কে তোমার উন্নত মানের দক্ষতা থাকতে হবে।

মাইক্রোসফট এক্সেল এর শর্টকাট অনেক পদ্ধতি আছে এবং সূত্রগুলো তুমি ধীরে ধীরে মুখস্ত করে নিবে ,পরে তা তুমি উন্নত মানের দক্ষতার সাথে গড়ে উঠবে যেন পরবর্তীতে তোমার কোন অসুবিধা না হয় কাজের ক্ষেত্রে। 

এরপর তোমার যে বিষয় নিয়ে দক্ষতা থাকা দরকার সেটা হলো টাইপিং স্পিড। বাংলা এবং ইংলিশ উভয় ভাষায় তোমার দক্ষতা বাড়াতে হবে তাকেই স্পিডের। প্রথম প্রথম তোমার আস্তে আস্তে সময় লাগতে পারে টাইপিং এর জন্য ,কিন্তু পরবর্তীতে তুমি প্র্যাকটিস করতে করতে তা টাইপিং করার গতি বেড়ে যাবে।

টাইপিং শেখার জন্য অনেক ধরনের সফটওয়্যার আছে ,যেগুলোর মাধ্যমে তুমি টাইপিং এর দক্ষতা বাড়াতে পারো। 

এরপর যে বিষয় নিয়ে তোমার ধারণা থাকা দরকার ,তাহল ইংরেজিতে কনভারসেশন। বন্ধুরা আমরা জানি যে ইংলিশ একটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা। বিশেষ করে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারে তোমার অবশ্যই ইংরেজি সম্পর্কে ভাষা জ্ঞান থাকতে হবে।

এছাড়া ব্যবসায়িক ক্ষেত্রেও তোমার ইংরেজি সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে কারণ ইমেইল করার জন্য তোমার অনেক ধরনের মানুষের সাথে কথা বলতে হতে পারে তাই তোমার ইংরেজি বিষয়ে উন্নত মানের দক্ষতা থাকতে হবে।

তুমি ইউটিউব দেখে দেখে কিংবা ইংলিশ শেখার অনেক বই আছে এগুলো কিনে তুমি নিজে নিজে প্র্যাকটিস করতে পারো। প্রথম প্রথম তুমি আয়না দেখে নিজের সাথে নিজের কনভার্সেশন করতে পারো ইংরেজিতে। ইংরেজি শেখার জন্য প্রথমেই আমাদের যেটা আছে সেটা হল ইংরেজিতে কথা বলার জড়তা। তোমাকে এটি অবশ্যই রপ্ত করতে হবে। 

এরপর আছে ইমেইল কম্পোসিং করা। অফিসে কিংবা ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারে তোমার অবশ্যই ইমেইল করতে হতে পারে। কিভাবে ইমেইল করতে হয় ?কিভাবে সি সি এবং বিসিসি কি সেগুলো সম্পর্কে তোমার অবশ্যই  ধারণা থাকতে হবে।

ইমেইলে আরো অনেক কাজ আছে সেটা হল বিজনেস ইমেইল পাঠানো। তোমার অফিসের বস হয়তোবা কোন একদিন বলতে পারে অমুক জায়গায় ইমেইল করে পাঠাও। সেটা হতে পারে দেশে কিংবা বিদেশে। তাই তোমার ইমেইল করা কিংবা বিজনেস সিমেইল করা সম্পর্কে তোমার ধারণা থাকতে হবে। 

এরপর আছে ফটো এডিট করা কিংবা গ্রাফিক ডিজাইন। তুমি যেখানেই যাওনা কেন ,যে কোন কাজে যাও না কেন তোমার অবশ্যই ফটো এডিটের হালকা-পাতলা কাজ করতে হতে পারে। তাই তোমার এ বিষয়ে ন্যূনতম  মানের দক্ষতা রাখতে হবে। 

এরপর যে বিষয় নিয়ে তোমার ধারণা থাকা দরকার তাহলো ভিডিও এডিট এর মাধ্যমে একটি গ্রাফ বা ভিডিও চ্যার্ট তৈরি করা। 

এরপর যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করব তা  হলো সেল সামথিং স্কিল ।তোমাকে ব্যক্তিত্বের সাথে এবং খুবই দক্ষতার  সাথে কোন কিছু বিক্রি বিক্রয় করতে হতে পারে ।তুমি এ বিষয়ে দক্ষতার সাথে এবং মাথা খাটিয়ে তুমি তা কাজে লাগাতে পারো। 

এরপর যে বিষয়টি তোমার মধ্যে থাকা দরকার তা হলো নিজের উপর আত্মবিশ্বাস। তোমার মধ্যে অবশ্যই ধারণা থাকতে হবে আই ক্যান ডু ইট। হ্যাঁ, তুমি অবশ্যই পারবা এ ধারণাটি তোমার অবশ্যই রাখতে হবে।

যেকোনো কাজের জন্য তোমাকে অবশ্যই প্রস্তুত থাকতে হবে। টিম মেম্বারদের সাথে তোমার যোগাযোগের দক্ষতা বাড়াতে হবে এবং টিম মেম্বারদের সাথে কাজ করার মানসিকতা থাকতে হবে। 

এর পরের বিষয় হচ্ছে তোমাকে যে কোন কিছু গ্রহণ করতে হবে। তোমাকে অবশ্যই যে কোন কাজ চাওয়া হবে ।অফিস থেকে তোমাকে অবশ্যই তা সেটি গ্রহণ করে মেনে নিতে হবে এবং সেটি তোমাকে করে দেখাতে হবে। 

এর পরের বিষয় হচ্ছে তোমাকে অবশ্যই পরিশ্রমই  হতে হবে। পরিশ্রম ছাড়া কখনোই সফলতা দেখা পাওয়া যায় না। এ পর্যন্ত যারা সফল মানুষ হয়েছেন তারা সবাই পরিশ্রমী এবং মেধাবী ছিলেন। তাই তোমাকে আজ থেকে প্রতিজ্ঞা করতে হবে যে তোমাকে অবশ্যই পরিশ্রমী হতে হবে। 

এরপর হচ্ছে তোমাকে প্রচুর বই পড়ার অভ্যাস থাকতে হবে। বই মানুষের জ্ঞান বাড়ায়। কারণ শিক্ষায় জাতির মেরুদন্ড। তাই তোমাকে যে কোন ক্ষেত্রে কাজ করার জন্য অবশ্যই বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। 

এর পরের বিষয় হচ্ছে তোমাকে অবশ্যই যোগাযোগের দক্ষতা বাড়াতে হবে। টিম মেম্বারদের সাথে কাজ করার মানসিকতা থাকতে হবে। সৎ হতে হবে। 

এর পরের বিষয় হচ্ছে উন্নতর চিন্তা ধারা করতে হবে। জব সেক্টরে অনেকে অনেক কিছু বলতে পারে। তাই বলে তোমাকে নিরাশ বা হতাশ হওয়ার যাবেনা। তোমার টিম মেম্বাররা বা তোমার বস অনেক কিছু বলতে পারে তাই বলে তোমাকে সেটি গ্রহণ করতে হবে।

তোমার চিন্তা-চেতনা অন্যদের চেয়ে আলাদা হতে হবে। তার মানে এই নয় যে তুমি খারাপ চিন্তা চেতনা বা খারাপ চিন্তা ভাবনা করবে। তোমাকে সবসময় একটিভ থাকতে হবে কাজের ক্ষেত্রে। কোনভাবেই অলসতা কে মেনে নেয়া যাবে না। ধূমপান ত্যাগ করতে হবে কারণ এটি ব্যক্তিত্ব ফুটিয়ে তোলে না। 

বন্ধুরা আজকে যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করলাম তা কেমন হলো তা জানিয়ে দেবে এবং ভালো লাগলে তা শেয়ার করে দেবে। আজ এ পর্যন্তই। পরবর্তীতে আসবো নতুন কোন বিষয় নিয়ে। আল্লাহ হাফেজ। 

Related Articles
Comments

You must be logged in to post a comment.