Youtubing করে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার পুরো গাইড

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতু। প্রিয় বন্ধুরা অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হল: ইউটিউবিং করে আয়। বর্তমান সময়ে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হল ইউটিউবিং। আজ ইউটিউব থেকে অনলাইনে প্রচুর পরিমাণে টাকা আয় করা যায়।

ইউটিউবে যে আজ থেকে ইনকাম হয় সেটা কিন্তু নয়। দীর্ঘ 10 15 বছর ধরে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করা যায়। তবে বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হলো ইউটিউবিং করে অনলাইনে ইনকাম। অনলাইনে হাজারো উপায়ে টাকা ইনকাম করা যায়। তবে তার ভিতরে ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম অন্যতম একটি মাধ্যম।

 আর্টিকেল এর ভূমিকা

ইউটিউব হল সারা বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম এর অন্যতম একটি প্ল্যাটফর্ম। ইউটিউবে প্রায় সকল ক্যাটাগরির ভিডিও আপনি সহজেই খুঁজে পেতে পারেন। অনলাইনে সবচেয়ে জনপ্রিয় প্লাটফর্ম হল গুগোল। আর এই গুগল এর পরেই স্থান রয়েছে ইউটিউব এর। এমনকি ইউটিউব থেকে বর্তমানে প্রচুর পরিমাণে টাকা ইনকাম করা যায়।

শুধুমাত্র অনলাইনে ইউটিউবিং করে 15 16 লাখ টাকা সহজেই অনেক কোম্পানি করে থাকে। আপনার আমার মত লোক এমনও রয়েছে যারা শুধু ইউটিউবিং করে হাজার হাজার ডলার প্রতি মাসে আয় করে। অনেকে আবার ইউটিউব কে নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নিয়েছে। শুধুমাত্র অনলাইনে ইউটিউবিং করে অনেকে নিজেদের ক্যারিয়ার সামলাতে পারে।

আপনার জন্য আরও লেখা:

তাহলে তো বুঝতে পারছেন শুধু ইউটিউবিং করে প্রতি মাসে কত টাকা ইনকাম করা সম্ভব। ইউটিউবে তেমন কোনো দক্ষতা বা বয়সের প্রয়োজন হয় না।তাই যে কেউ চাইলে অনলাইনে ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম করতে পারে। ইউটিউবে সাধারণত ভিডিও আপলোড করে টাকা ইনকাম করতে হয়। শুধুমাত্র ভিডিও আপলোড করে অনেকে হাজার হাজার ডলার নিমেষে আয় করে থাকে।

আর অনলাইনে সবচেয়ে সহজ কাজ এর অন্যতম কাজ হল ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম করা। তাই আপনি যদি সহজ কাজ করে ইনকাম করতে চান তাহলে, আপনার জন্য সবচেয়ে বেস্ট হবে অনলাইনে ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম করা। ইউটিউবিং করে আয় সবার জন্য উন্মুক্ত। তেমন কোনো দক্ষতা এবং যোগ্যতা বয়স ছাড়াই অনলাইনে ইউটিউবিং করে ইনকাম করা যায়।

এমনকি আপনিও চাইলে অনলাইনে ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।আমাদের আজকের আর্টিকেলটি ইউটিউব সম্পর্কিত একটি আর্টিকেল। আজকের আর্টিকেলে আমরা শিখতে বা জানতে চলেছি,,, কিভাবে অনলাইনে ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম করা যায়? এবং কিভাবে টাকা হাতে পাওয়া যায় এ টু জেড। আর কথা না বাড়িয়ে চলুন বিস্তারিত আর্টিকেলটি শুরু করা যাক।

অনলাইনে ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম করার উপায়?

ইউটিউবিং করে আয়ঃ আপনি যদি ইউটিউব করে অনলাইনে ইনকাম করতে চান তাহলে, সর্বপ্রথম আপনাকে ইউটিউব প্ল্যাটফর্ম এর সাথে যুক্ত হতে হবে। তার জন্য অবশ্যই আপনার একটি জিমেইল আইডির প্রয়োজন হবে।জিমেইল আইডি ব্যতীত কখনোই ইউটিউবিং করতে পারবেন না বা ইউটিউবে অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন না। আপনার একটি জিমেইল একাউন্ট না থাকলে অবশ্যই একটি তৈরি করে নিবেন।

তারপর ইউটিউবে এসে আপনার জিমেইল দিয়ে একাউন্টে লগইন করবেন। অ্যাকাউন্ট লগইন হয়ে গেলেই আপনার একটি চ্যানেল অটোমেটিক্যালি একটি ডিফল্ট হয়ে যাবে। যাইহোক আপনি যদি ইউটিউবিং শুরু করতে চান তাহলে সর্বপ্রথম আপনাকে একটি চ্যানেল তৈরি করতে হবে।তবে অটোমেটিক্যালি যে চ্যানেলটি রয়েছে এই চ্যানেলটি বাদ দিয়ে নতুন একটি চ্যানেল তৈরি করতে হবে।

ইউটিউব এ চ্যানেল সবাই করতে পারে। তবে আমরা যেহেতু ইউটিউবিং করব সেহেতু প্রফেশনাল ভাবে একটি চ্যানেল তৈরি করব ইউটিউব এ। প্রফেশনাল ভাবে একটি নাম বাছাই করে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলের নাম টি দিতে হবে। ধরুন আপনি ইউটিউবে রান্না রিলেটেড ভিডিও আপলোড করতে চাচ্ছেন,,, সেতু আপনি রান্না রিলেটেড একটি ইউটিউব চ্যানেল এর নাম বাছাই করে নিবেন।

সুন্দরভাবে আপনার ইউটিউব এ চ্যানেল তৈরি করার পর,,, আপনার কাজ হল প্রফেশনালভাবে ভিডিও তৈরি করে এডিট করে আপলোড করা।তবে আপনার ইচ্ছামত ভিডিও তৈরি করলেন আর ইচ্ছামত আপনার চ্যানেলে আপলোড করে দিলেই কিন্তু হবে না। ইউটিউবে যে কোনো ভিডিও আপলোড করলে আপনি ইউটিউবে করে আর্ন বা ইনকাম করতে পারবেন না।

ইউটিউবে কি ধরনের ভিডিও আপলোড করা উচিত?

  • সম্পূর্ণ নিজেরা ভিডিও তৈরি করে চ্যানেলে আপলোড করতে হবে।
  • কখনোই নিজের ইউটিউব চ্যানেলে অন্যের চ্যানেলের ভিডিও ডাউনলোড অথবা কপি করে আপলোড করা যাবেনা।
  • অন্যের ভিডিওর কন্টেন কোয়ালিটি ছবি ইমেজ অথবা মিউজিক নিজের ভিডিওতে ব্যবহার করা যাবে না।
  • ভিডিওতে খারাপ অশ্লীল অথবা অসামাজিক মানুষ অপছন্দ করে এই ধরনের ভিডিও আপলোড করা যাবেনা।
  • সব সময় মানুষের প্রয়োজনীয় তথ্যবহুল ভিডিও আপলোড করতে হবে ইউটিউব চ্যানেলে।
  • ইউটিউব এর নিয়ম নীতি এবং রুলস গুলো মেনে আপনাকে ভিডিও আপলোড করতে হবে।
  • অন্যের ভিডিওর ক্লিপস নিজের ভিডিওর 1 সেকেন্ড ব্যবহার করা যাবে না।

বন্ধুরা উপরের এগুলো মেনে কাজ করলে অবশ্যই আপনারা আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিও আপলোড করতে পারবেন।অর্থাৎ উপরোক্ত নিয়মগুলো অবলম্বন করে ভিডিও তৈরি করে, আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করলে কোনো সমস্যা হবে না। তাই আপনারা উপরের নিয়মগুলো মেনে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিও আপলোড করতে পারেন।

প্রিয় বন্ধুরা আপনি যদি ইউটিউব করে ইনকাম করতে চান তাহলে, কোন দক্ষতা বা যোগ্যতা এবং বয়স ছাড়াই ইউটিউবিং করে আয় করতে পারবেন। তবে ইউটিউবিং করার জন্য আপনার বেশ কিছু জিনিস এবং গুণ এর প্রয়োজন হবে।সত্যিকার অর্থে এগুলো ব্যতীত কখনোই আপনি ইউটিউবিং করে ইনকাম করতে পারবেন না। তো চলুন এই বিষয়ে আমরা একটু বিস্তারিত জেনে নিই।

অনলাইনে ইউটিউবিং করে আয় করার জন্য যা যা প্রয়োজন?

  • ইউটিউবিং করার জন্য অবশ্যই আপনার ভালো মানের একটি কম্পিউটার অথবা ডেস্কটপ থাকতে হবে।
  • আর যদি এগুলো নাও থাকে তাহলে অবশ্যই ভালো মানের একটি এন্ড্রয়েড ফোন থাকতে হবে।
  • অনলাইনে আপনাকে কাজ করার জন্য, অবশ্যই ইন্টারনেট কানেকশন অথবা ওয়াইফাই সিস্টেম থাকতে হবে।
  • ইউটিউবিং করার জন্য অবশ্যই একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে হবে।
  • এবং নিয়মিত আপনার ইউটিউব চ্যানেলে মানুষের প্রয়োজনীয় ভিডিও আপলোড করতে হবে।
  • অশ্লীল, অপ্রয়োজনীয়', খারাপ ভিডিও, সমাজে আঘাত আনে,হ্যাকিং সম্পর্কিত ভিডিও আপলোড করা থেকে বিরত থাকতে হবে।
  • অন্যের চ্যানেলের ভিডিও কপি করে অথবা ডাউনলোড করে সরাসরি আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা যাবেনা।
  • নিজের ইচ্ছেশক্তি, পরিশ্রমই, ধৈর্যশীল, সততা ইত্যাদি গুণ নিয়ে ইউটিউবিং করতে হবে।

প্রিয় বন্ধুরা উপরের জিনিস এবং গুণগুলো আপনাদের ভিতর থাকলে, অবশ্যই আপনারাও ইউটিউবিং করে আয় করতে পারবেন আশা করি। উপরোক্ত জিনিস এবং কোন কাজে না লাগিয়ে কখনোই ইউটিউবিং করে আয় করতে পারবেন না।তাই আপনার যদি ইউটিউব করে আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাদের উপরের গুণ এবং জিনিসগুলো প্রয়োজন হবে।

ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম শুরু কিভাবে?

টাকা ইনকাম শুরু যেভাবেঃ আপনি যদি ইউটিউব করে টাকা ইনকাম শুরু করতে চান তাহলে, আপনি কি ইউটিউব এর কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে।আর ইউটিউবিং করে ইনকাম করার জন্য আপনাকে ইউটিউব এর পার্টনার প্রোগ্রাম এর সাথে যুক্ত হতে হবে। তাহলে আপনারা ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম শুরু করতে পারবেন। এখন আপনারা যদি ইউটিউব এর পার্টনার প্রোগ্রাম এর সাথে যুক্ত হতে চান তাহলে, ইউটিউব এর কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে। তাহলে আপনি ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রামের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

পার্টনার প্রোগ্রামে যুক্ত হওয়ার জন্য যা যা করণীয়?

ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রাম যুক্ত হওয়ার জন্য, ইউটিউব এর কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে। তাহলে আপনারা ইউটিউব এর পার্টনার প্রোগ্রাম এর জন্য আবেদন করতে পারবেন ইউটিউব এ। তো চলুন এখন আমরা জেনে নেই কিভাবে ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রাম এর জন্য আবেদন করতে হবে।

পার্টনার প্রোগ্রাম এর আবেদনের শর্তঃ আপনার ইউটিউব চ্যানেলে 12 মাসের ভিতরে, 4000 ঘন্টা ওয়াচ টাইম এবং 1000 সাবস্ক্রাইব কমপ্লিট করতে হবে। এই দুটি শর্ত আপনারা 12 মাস অর্থাৎ এক বছরের ভিতর কমপ্লিট করতে পারলেই,,, ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রামের জন্য আবেদন করতে পারেন। অর্থাৎ আপনার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন অন করতে পারেন। মনিটাইজেশন এর অর্থ হল আপনার ইউটিউবে ইনকাম শুরু করা।

যখন আপনার ইউটিউব চ্যানেলে 4000 ঘন্টা ওয়াচ টাইম এবং 1000 সাবস্ক্রাইব কমপ্লিট হয়ে যাবে তখন, সরাসরি আপনার ইউটিউবে এপ্লাই করার জন্য অপশন চলে আসবে। সেখানে আপনি জাস্ট এ ক্লিক করে আবেদন করতে পারবেন ইউটিউব এর পার্টনার প্রোগ্রামের জন্য। যদি তাদের শর্তসাপেক্ষে আপনি উপযোগী মনে হয় তাহলে আপনার একসেপ্ট করবে।এবং তখন থেকে আপনার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন হয়ে যাবে।

আপনার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন অন হয়ে গেলে আপনার ইউটিউবে ইনকাম শুরু হয়ে যাবে। তবে আপনি যদি ইউটিউব এর নিয়ম ভঙ্গ করে কাজ করেন তাহলে, কখনোই তারা আপনার আবেদনটি এপ্রুভ করবে না। আর আপনার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন না হলে ইনকাম হবে না। তাই অবশ্যই তাদের নিয়ম-নীতি গাইডলাইন মেনে কাজ করবেন। তাহলে আশা করি আপনারা ইউটুবে মনিটাইজেশন অন করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এখন হয়তো আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে, আমার ইউটিউব এর টাকা কোথায় দেখা যাবে? কোন ভিডিওতে কত টাকা পাচ্ছি কোথায় দেখতে পাবো?বা কত টাকা হলে ইউটিউব এর থেকে ইনকাম উত্তোলন করা যাবে? তো বন্ধুরা এখন আমরা এই বিষয়গুলো নিয়ে একটু ডিটেইলস এ আলোচনা করব। তা অবশ্যই এখানে একটু মন দিয়ে পড়ুন।

আপনার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন এর জন্য এপ্লাই করেছেন,,, এবং আপনার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন অন হয়ে গেল,,, তবে আপনার ইউটিউব এর ইনকাম শুরু হয়ে যায়নি। আপনি ইউটিউব এর থেকে ইনকাম শুরু করতে চাইলে, আপনি কি আরও একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। আর এই একাউন্টের নাম হলো গুগল এডসেন্স। সাধারণত ইউটিউবে আপনারা গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম শুরু করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স ব্যতীত আপনার ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম শুরু করতে পারবেন না।এবং আপনি ইউটিউব থেকে কত টাকা ইনকাম করেছে সেটা এডসেন্স একাউন্টে দেখতে পারবেন।এবং এই গুগল এডসেন্স থেকেই আপনি ইউটিউব এর টাকা উত্তোলন করতে পারবেন। তো চলুন এবার আমরা এডসেন্স থেকে কিভাবে ইনকাম হয় ইউটিউবে? এবং গুগল অ্যাডসেন্স থেকে কিভাবে টাকা উত্তোলন করা যায়? এই বিষয়বস্তুগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করি।

গুগল অ্যাডসেন্স থেকে ইউটিউবে টাকা ইনকাম শুরু যেভাবে?

আপনি যদি ইউটিউব করে টাকা ইনকাম শুরু করতে চান,তাহলে আপনার চ্যানেল টি সর্বপ্রথম মনিটাইজেশন অন করতে হবে। এবং সাথে সাথে আপনাকে গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। গুগল এডসেন্স একাউন্ট এপ্রুভ হয়ে গেলেই আপনি ইউটিউবিং করে ইনকাম শুরু করতে পারবেন। তার জন্য আপনার প্রথমে একে গুগল এডসেন্স একাউন্ট তৈরী করতে হবে ইউটিউবে স্রোতে।

কিছুদিনের ভিতর গুগল এডসেন্স আপনার ইউটিউব এর ফলাফল দিয়ে দিবে। আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্ট যদি এপ্রুভ হয়ে যায় তাহলে, তখন আপনারা চাইলে আপনার ইউটিউবে বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন। এখন আপনার ইউটিউবে ইনকাম শুরু হবে গুগলের এই বিজ্ঞাপন দ্বারা। আপনার ইউটিউবে গুগলের এই বিজ্ঞাপনগুলো কেউ দেখলেই। আপনার ইউটিউবে আয় শুরু হয়ে যাবে।

ঠিক এভাবেই করে ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম শুরু করা যায়। আপনার গুগল এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন গুলো যারা দেখল তারা আপনার ইনকাম দিয়ে গেল। আর আপনি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে বিজ্ঞাপনের দ্বারা সহজেই ইনকাম করতে পারছেন। আশা করি আপনারা সকলেই বুঝতে পেরেছেন কিভাবে অনলাইনে ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম শুরু করা যায় সেটা!

এতক্ষণে আমরা কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করা যায়? এই বিষয়গুলো নিয়ে step-by-step বিস্তারিত আলোচনা করেছি। এখন হয়তো অনেকের মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে, কিভাবে ইউটিউব ইন করে টাকা আয় উত্তোলন করা যায়? হ্যাঁ আপনারা ইউটিউবিং করে আয় করতে পারলে,,, অবশ্যই ইউটিউব এর টাকা গুলো উত্তোলন করতে পারবেন সহজেই। তো চলুন আর কথা না বাড়িয়ে এবার আমরা জেনে নিই কিভাবে ইনকাম করে টাকা উত্তোলন করা যায়?

ইউটিউবিং করে টাকা উত্তোলন করার উপায়?

আমি আগেই বলেছি ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে হলে, আপনার অবশ্যই গুগল এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন বসাতে হবে আপনার ভিডিওতে।এই বিজ্ঞাপনগুলো যত লোক দেখবে ততো আপনার ইনকাম আসতে থাকবে।এবং এটা বলেছিলাম যে টাকা উত্তোলন আপনারা গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে করতে পারবেন। তো বন্ধুরা গুগল এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওতে কেউ দেখলে,,,

এই টাকাগুলো আপনার ইউটিউব চ্যানেলে দেখা যাবে।তাছাড়া আপনার কত টাকা ইনকাম হলো টাকা উত্তোলনের উপযোগী এই ইনকাম গুলো গুগল এডসেন্স একাউন্টে যোগ হবে। এবং নির্দিষ্ট পরিমাণ গুগল এডসেন্স একাউন্টে টাকা যোগ হয়ে গেলে সে টাকা আপনারা উত্তোলন করে নিতে পারবেন। আশাকরি সকলেই বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন।তো গুগল অ্যাডসেন্স থেকে কিভাবে সঠিক ভাবে টাকা উত্তোলন করতে হয় বা করা যায়?চলুন এবারে আমরা এ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন!

গুগল এডসেন্স থেকে সঠিক ভাবে টাকা উত্তোলন কিভাবে করতে হয়?

টাকা উত্তোলন যেভাবেঃ আপনার ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম গুলো গুগল এডসেন্স একাউন্টে একাউন্টে যুক্ত করা হবে।এবং আপনারা এই গুগল এডসেন্স থেকেই ইউটিউব এর টাকা গুলো উত্তোলন করতে পারবেন।তবে তার জন্য আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্টে 10 ডলার সর্বপ্রথম থাকতে হবে। 10 ডলার আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্টে জমা হলে,

গুগল থেকে আপনার এড্রেসে একটি চিঠি আসবে,,, এই চিঠিটি আপনার গুগল এডসেন্স এর এড্রেস টি ভেরিফাই করার জন্য দেওয়া হবে। এই চিঠিতে একটি পিন কোড দেওয়া থাকবে।তারপর আপনার যে কাজটি করতে হবে সেটা হলো এই চিঠির কোড টি আপনাকে গুগল এডসেন্স একাউন্টে সাবমিট করতে হবে। যদি আপনি এই পিন কোড টি সাবমিট করে দেন তাহলে, আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্ট ভেরিফাইড।

এরপর থেকে আপনারা চাইলে আপনার দেশের যেকোন ব্যাংক অ্যাকাউন্ট গুগোল অ্যাডসেন্সে এড করতে পারেন। আগে আপনার আর্নিং ছিল 10 ডলার এখন করতে হবে আরো 90 ডলার। অর্থাৎ আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্টে যখন 100 ডলার জমা হবে তখন,,, গুগোল সেই মাসের একেবারে শেষের দিকে আপনার ব্যাংক একাউন্টে টেনাসফার করে দিবে। এবং আপনার ব্যাংক একাউন্টে আসতে হয়তো দুই এক দিন সময় লাগতে পারে।

আর এই টাকা যখন আপনার ব্যাংক একাউন্টে ট্রান্সফার হয়ে যাবে। তখন অটোমেটিকেলি আপনার জি-মেইল অ্যাকাউন্টে একটি এসএমএস চলে যাবে। এবং আপনারাও সাথে সাথে আপনার ব্যাংক একাউন্টে টাকা গুলো দেখতে পারবেন। এবং আপনার ইচ্ছামত আপনার ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করে নিতে পারবেন।ইউটিউবিং করে সাধারণত টাকা উত্তোলন এভাবেই করতে হয় বা করা যায়।

প্রিয় বন্ধুরা আশা করি আপনারা সকলে বুঝতে পেরেছেন। কিভাবে ইউটিউব শুরু করা যায়? কিভাবে ইউটিউবে ভিডিও আপলোড সঠিক ভাবে করতে হয়? এবং কিভাবে ইউটিউবে ইনকাম শুরু হয়? এবং শেষ পর্যন্ত হাতে টাকা কিভাবে পৌঁছায়? এই বিষয়বস্তুগুলো আশা করি আপনারা বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন। যদিও এই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। তবুও যদি আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে, কমেন্ট করতে একদমই ভুলবেন না। আমি অবশ্যই আপনাদের কমেন্ট গুলো রিপ্লে দেওয়ার চেষ্টা করব।

আর্টিকেল এর শেষ কথা

আজকের আর্টিকেলে আমরা কিভাবে ইউটিউব এ কি করে টাকা ইনকাম করা যায়? এই বিষয়গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।আর্টিকেল সম্পর্কিত কোনো মতামত অথবা প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।আমরা অবশ্যই আপনাদের কমেন্টের রিপ্লে দেওয়ার চেষ্টা করব।

আমাদের আজকের আর্টিকেলটি পড়ার জন্য সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আজকের আর্টিকেলটি এ পর্যন্তই। সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন এবং নিরাপদে থাকুন। দেখা হবে আবার কোন কোন আর্টিকেলে। আসসালামু আলাইকুম ও রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।

Comments

You must be logged in to post a comment.

Related Articles
Recent Articles

আপনার জন্য আরও লেখা: