আমি কিভাবে এসইও করি আমার ওয়েবসাইটে- এসইও টিউটরিয়াল

বর্তমানে যারা ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করে তাদের প্রথম টার্গেট থাকে গুগল থেকে অরগানিক ভিজিটর নিয়ে আসা। যার জন্য প্রত্যেকটি ওয়েবসাইটকে এসইও করতে হয়। আর এসইও এর দুইটা পার্টের মধ্যে অন পেজ এসইও তো খুব সহজেই করা যায় কিন্তু অপরদিকে অফ পেজ এসইও সবথেকে বেশি ঝামেলার হয়। বিশেষ করে ব্যাকলিঙ্ক বিল্ডিং কাজটি। আর এটার জন্যই ওয়েবসাইট মাস্টাররা প্রচুর কষ্ট করে থাকে।

তাই আজকের এই আর্টিকেলে আমরা জানবো কিভাবে ব্যাকলিঙ্ক করতে হয়। আমি নিজেও একজন ওয়েবমাস্টার। আমি নিজে কিভাবে ব্যাকলিঙ্ক করি সেটার পরিপূর্ণ গাইডলাইন এই আর্টিকেলে আজকে দিয়ে দিবো।

তো চলুন শুরু করা যাক,

আমি যখন একটি ওয়েবসাইটের ব্যাকলিংক বিল্ডিং কাজ শুরু করি তখন পুরো স্টেপটাকে আমি ৩ টা ভাগে ভাগ করি।

বেজ/ফাউন্ডেশন লিংক

পাওয়ার লিংক

টিয়ারড লিংক এখন চলুন বিষয়গুলো বিস্তারিত জেনে নেই।বেজ/ফাউন্ডেশন লিঙ্কঃ বেজ বা ফাউন্ডেশন লিংকগুলো হচ্ছে এমন সব ব্যাকলিংক যেগুলো যেকোনো ওয়েবসাইটের স্ট্রেংথ তৈরিতে ফাউন্ডেশন হিসাবে কাজ করে।

কিন্তু র‍্যাংক ইমপ্রুভমেন্ট করার জন্য কোনো ধরনের ভূমিকা রাখতে পারেনা। মানে আপনার ওয়েবসাইটকে দাড় করাবে গুগলের কাছে কিন্তু কোনো কিওয়ার্ড রেঙ্ক করতে সাহায্য করবে না। এখন প্রশ্ন হচ্ছে "এই বেজ লিঙ্ক আসলে কোনগুলো"?

আপনার জন্য আরও লেখা:

নিচে কিছু বেজ লিংক সোর্স দিয়ে দিলামঃ

১. ওয়েব ২.০

২. আর্টিকেল ডিরেক্টরি

৩. ভিডিও ব্যাকলিংকস (ভিডিও শেয়ারিং সাইটগুলো থেকে)

৪. স্লাইড এবং ডকুমেন্টস শেয়ারিং সাইটস

৫. ব্লগ কমেন্ট (খুবই হাই কোয়ালিটির হ্যান্ড পিকড সাইট, ডিটেইলড ভ্যালু অ্যাডিশন কমেন্ট)

৬. ফোরাম পোস্টিং ( কমিউনিটি এনগেজমেন্ট পোস্ট)

৭. কোয়েশ্চেন/অ্যানসার সাইট

৮. কনটেন্ট মার্কেটিং থ্রু কমিউনিটি সাইট

৯. উইকি সাইট ব্যাকলিংকস

১০. ইমেইজ ব্যাকলিংকস

১১. অডিও ব্যাকলিংকস

১২. প্রোফাইল লিংকস Like About.me)

বেজ লিংক শেষ হয়ে গেলে শুরু করি 'পাওয়ার লিংক করার কাজ। এখন এখানে একটি প্রশ্ন আসে সেটি হচ্ছে " পাওয়া লিঙ্ক আসলে কি এবং কোনগুলো? " পাওয়ার লিঙ্ক হলো এমন সব ব্যাকলিঙ্ক যেগুলো ওয়েবসাইট রেঙ্ক করতে অনেক সহায়তা করে।

মানে এই ব্যাকলিঙ্কগুলো করলে ওয়েবসাইট মোটামুটি রেঙ্ক হয়ে যায়। আর কিছু করতে হয় না। এখন চলুন এই পাওয়ার লিঙ্ক কোনগুলো সেগুলো জেনে নেই।

১. কনটেন্ট মার্কেটিং

২. রিসোর্স লিংক বিল্ডিং

৩. গেস্ট পোস্টিং

৪. ব্লগ আউটরিচ (কনটেক্সুয়াল লিংক)

তো এই ছিলো, কিভাবে ওয়েবসাইটে ব্যাকলিঙ্ক করলে খুব দ্রুত রেঙ্ক করবে। সবকিছু নিজের অভিজ্ঞতা থেকে শেয়ার করা যাতে আপনার হেল্প হয়। যাইহোক, যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। আমি উত্তর দেয়ার চেষ্টা করবো।

এছাড়াও আপনি যদি ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, ওয়ার্ডপ্রেস, ইউটিউবিং, টেকনোলজি বিভিন্ন টিপ্স এন্ড ট্রিক্স, ডিজিটাল স্কিল শিখতে চান তাহলে আমার ওয়েবসাইট স্কিলগরি ভিজিট করে দেখতে পারেন।

কারন আমি প্রতিনিয়ত ডিজিটাল স্কিল বিষয়ক টিউটোরিয়াল পাবলিশ করে যাচ্ছি আমার ওয়েবসাইটে। আপনি অনেক কিছু শিখতে পারবেন আশা করছি।

Comments

You must be logged in to post a comment.

Related Articles
Recent Articles

আপনার জন্য আরও লেখা: