ইয়াং বয়সে প্রেম

Earning : ৳0.000

শুনলাম, ছ্যাকা খাওয়ার পর তুই ঠিকমত পড়তে পারছিস না, ঠিকমত খাইতে পারিস না, ঠিকমত ঘুমাইতেও পারিস না। এ লেখাতে বলব, কি কি করলে তুই এই খারাপ সময়টা থেকে বের হতে পারিস,

আমাদের চ্যানেলটি সাবসক্রাইব করুন

শুরুতে একটা গল্প বলে নিই, আমি এক ভাইকে চিনি যার HSC টেস্ট পরীক্ষার আগে তার ইয়ের বিয়ে হয়ে যায়।

ভাই প্রায় দুই মাস পাগল থাকেন, রাস্তায় রাস্তায় ঘুরেন। সিগারেটও ধরেন। টেস্টেও ফেল আসে। টেস্টের পর ৪ মাস এমন একটা জেদ আসলো ভাইয়ের, গামছা কোমড়ে বেঁধে দরজা লাগায়া সারা দিন রাত পড়াশোনা করলেন।

HSC তে A+ তো পেলেন, বুয়েটে EEE তেও চান্স পেয়ে গেলেন।

শোন ভাই, ছোটবেলার স্কুল-কলেজ লাইফের ৯৯% প্রেম টেকে না। এই প্রেমের ৪-৫ টা ধাপ কমন থাকে।

১ম ধাপ একে অপরকে ইম্প্রেসড করা, এই ধাপে একে অপরকে নিজের ভাল ভাল গুণগুলো দেখানোর চেষ্টা করা হয়। খুব মজা মাস্তিতে কেটে যায় এই প্রথম ধাপটা।

২য় ধাপ নিজের পার্সোনাল লাইফের গোপন গল্পগুলো শেয়ার করে ফেলা হয়। নিজেকে নিজেই বাঁশ দিয়ে ফেলা হয়। মাঝে মধ্যেই ঝগড়া লাগা শুরু হবে।

৩য় ধাপ সময় না দিতে পারা। একজন বলবে, "চলো, দেখা করি", "আজ ঘুরতে যাই", অন্যজনের থাকবে এক্সাম। তখন ক্যারপা লাগা শুরু হবে।

শেষ ধাপ হবে ব্রেক আপ! কারণ হিসেবে দেখানো হবে- আমার ফ্যামিলি মানবে না, তুমি আমার যোগ্য না ইত্যাদি।

প্রেম করবি কি করবি না?

শোন, ছেলেদের মেয়েদের প্রতি আকর্ষণ থাকবেই। মেয়দেরও ছেলেদের প্রতি আকর্ষণ থাকবে। আল্লাহ আমাদের এভাবে বানাইছেন। এগুলো ইগনোর করার ক্ষমতাও তিনি মানুষের হাতে দিয়েছেন।

এই বয়সে যদি তুই সারাদিন মেয়ে বিষয়ক ফিলিংস নিয়ে পড়ে থাকিস, এইগুলো ইগনোর করতে না পারিস, তবে তুই নিজেকে যোগ্য মানুষ হিসেবে তৈরি করতে পারবি না। তাই বলছি, আমার কথা শুনে, মাইনকা চিপায় পড়ার আগে ভাগেই সাবধান হয়ে যা।

আসক্তি শুরুতেই ফিরে আসা যত সহজ, পরে ফিরে আসা খুব কঠিন। যেমন সিগারেট ছাড়ার উপায় হচ্ছে, কোনোদিন সিগারেট খাওয়া শুরুই না করা।

ব্রেক-আপ হয়ে গেলে কি করবি?

☞ সবার প্রথম এই ব্রেক-আপ টা মেনে নে। তোর ভুল ছিলো নাকি ওর ছিলো, খুঁজতে যাবি না। তার নেতিবাচক গা জ্বলানো বিষয়গুলা ডায়েরিতে লিখে রাখ।

☞ তোর ভালো বন্ধুদের সাথে সময় কাটাবি। আমরা যাদের সাথে চলাফেরা করি তার এভারেজ আমরা মনে রাখিস।

☞ মানুষ যেটাতে বেশি সময় দেয়, সেটাই তার মাথায় সারাক্ষণ ঘুরে। প্রেমে সময় বেশি দিছিলি, তাই স্মৃতিগুলো ভুলতে পারছিস না। এখন রেজাল্টের টার্গেট সেট করে পড়াশোনায় বেশি সময় দে, কয়েকদিন কষ্ট করে হলেও পড়বি। তারপর দেখবি, শুধু পড়াশোনা/ক্রিয়েটিভ কাজই মাথায় ঘুরবে।

☞ একা একা থাকার মজা আছে। তা উপভোগ কর।

☞ আর শোন, হুট হুট করে নতুন কোনো সম্পর্কে নিজেকে জড়াতে যাবি না।

☞ সবসময় পজিটিভ চিন্তা করবি। সে তোর সাথে থাকলে তোর আর বড় ক্ষতি করতে পারতো।

☞ কোনোভাবেই তাকে আর মেসেজ, কল করবি না। তার ফেসবুক আইডিতে ঢুকবি না।

☞ নিজেকে ভালবাসতে শিখ। নিজের ভেলু ভুলে যাস না কখনোই।

☞ কোনো সৃজনশীল কাজের সাথে নিজেকে ব্যস্ত রাখ।

☞ সঠিকভাবে খাওয়া-দাওয়া কর, পরিমিত ঘুম পারবি।

☞ নিয়মিত ব্যায়াম করতে পারিস।

শেষ কথা, শোন- এই পৃথিবীতে কোনো কিছুই স্থায়ী না। তোর এই খারাপ সময়টাও চিরস্থায়ী না ভাই। মনে রাখিস, যে একবার চলে গিয়ে ফেরত আসে সে আবার ফেরত যাবে।

ইনশআল্লাহ, কয়েকদিন পর সব ঠিক হয়ে যাবে। তোর একটামাত্র সুখের জন্য নিজের পরিবারকে ভুলে যাস না। প্রতিদিন নিজের সাথে চ্যালেঞ্জ নিয়ে, নিজেকে যোগ্য হিসেবে তৈরি কর। যাতে সে বুঝতে পারে, তুই কি জিনিস!

আর তুই নিজেই জীবনের একটা সময় এসে বুঝতে পারবি, বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণ সময় নষ্ট ছাড়া আর কিছুই নয়।

শেয়ার করে তোমার ঐ বন্ধুকে, যে বন্ধু ছ্যাকা খেয়ে হতাশ হয়ে নিজেকে ভুলে গেছে।

Related Articles
Comments

You must be logged in to post a comment.