সহজ ও জনপ্রিয় পদ্ধতিতে ইউটিউবে টাকা ইনকাম করার উপায়

আসসালামু আলাইকুম ও রাহমাতুল্লাহি ওয়াবারকাতুহু। বন্ধুরা বর্তমান সময়ে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হলো ইউটিউব থেকে ইনকাম।যে কেউ চাইলে ইউটিউবে যুক্ত হবে সহজে টাকা ইনকাম করতে পারে। বর্তমান সময়ে অনেকে ইউটিউবে প্রচুর পরিমানে আয় করে থাকে।

আজকের আর্টিকেলে আমরা শিখতে বা জানতে চাইছি,,,ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার সহজ কয়েকটি পদ্ধতি নিয়ে।অর্থাৎ ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার কয়েকটি সহজ পদ্ধতি নিয়ে আজকের আরটিভির আলোচনা করব।যাতে করে আপনারা সহজেই ইউটিউব থেকে প্রচুর পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার উপায়?

ইউটিউব থেকে ইনকামঃ আপনি যদি ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে, সর্বপ্রথম আপনাকে ইউটিউবে একটি চ্যানেল তৈরি করতে হবে।তবে আজেবাজে বা আপনার ইচ্ছামতো যেকোনো চ্যানেল তৈরি করা যাবে না। হ্যাঁ আপনি তো অবশ্যই একটি চ্যানেল তৈরি করবেন।

তবে আপনাকে ইউটিউবে প্রফেশনাল ভাবে একটি চ্যানেল তৈরি করতে হবে। কিভাবে প্রফেশনাল ভাবে ইউটিউব এ চ্যানেল তৈরি করতে হয়? এ বিষয়ে ইউটিউবে হাজারো টিউটোরিয়াল রয়েছে। আপনারা চাইলে সহজেই ওই টিউটোরিয়াল গুলো দেখে একটি সুন্দর প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে পারেন।

ইউটিউব এ প্রফেশনাল চ্যানেল তৈরি করার পর আপনার কাজ হলো এই ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করা।ভিডিও আপলোড করাই আপনার ইউটিউব চ্যানেলের মূল কাজ। এবং আপনাকে আপনার এই ইউটিউব চ্যানেলে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতেই হবে।

আপনার জন্য আরও লেখা:

তবে এখানে একটা কথা স্পষ্ট ভাবে মনে রাখা দরকার যে, আজেবাজে অথবা নিজের ইচ্ছামত কিংবা অন্যের ভিডিও নিজের চ্যানেলে আপলোড করা যাবে না। এবং কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে আপনাকে ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করতে হবে। তবেই কিন্তু আপনারা ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম শুরু যেভাবে?

এতক্ষণে হয়তো আপনার মনে প্রশ্ন আসছে কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম শুরু হবে। বন্ধুরা ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য, আপনাকে ইউটিউব এর কিছু শর্ত ফুলফিল বা পূরণ করতে হবে। তাহলে আপনারা ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম শুরু করতে পারবেন।

  • প্রথমত আপনার ইউটিউব চ্যানেলে 1000 সাবস্ক্রাইব থাকতে হবে।
  • দ্বিতীয়ত আপনার ইউটিউব চ্যানেলে 4000 ঘন্টা ওয়াচ টাইম থাকতে হবে।
  • এই দুটি শর্ত আপনাকে ঠিক 12 মাসের ভিতরে অর্থাৎ এক বছরের ভিতর পূরণ করতে হবে।

বন্ধুরা আপনি যদি ইউটিউবে টাকা ইনকাম শুরু করতে চান তাহলে, আপনার ইউটিউব চ্যানেল টি মনিটাইজেশন অন করতে হবে। অথবা আপনাকে ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রাম এর সাথে যুক্ত হতে হবে। তাহলেই আপনারা ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম শুরু করতে পারবেন।

উপরোক্ত তিনটি শর্ত পূরণ করতে পারলেই আপনারা আপনার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন এর জন্য এপ্লাই করতে পারবেন। অথবা আপনার ইউটিউব চ্যানেল পার্টনার প্রোগ্রাম এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করার কিছুদিনের ভিতরেই জিমেইল এর মাধ্যমে ফলাফল জানিয়ে দিবে তারা।

তাদের শর্তসাপেক্ষে সবকিছু ঠিকঠাক এবং আপনাকে বিশ্বস্ত মনে হলে অবশ্যই আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি মনিটাইজেশন অন করে দেবে। এবং আপনারা ইউটিউব থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম শুরু করতে পারবেন।আর হ্যাঁ অবশ্যই তাদের নিয়ম-নীতি মেনে আপনাকে এখানে কাজ করতে হবে। তাহলে আপনারা ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম শুরু করতে পারবেন আশা করি।

ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার সহজ মাধ্যম?

ইউটিউব থেকে আপনারা অনেক ধরনের সহজ মাধ্যম বা পদ্ধতি অবলম্বন করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। প্রায় সময় অনলাইনে অনেকেই ইউটিউব এর মাধ্যমে সহজ কাজ করে প্রচুর পরিমাণে টাকা ইনকাম করে। তাই এখন আমরা কয়েকটি বিশ্বস্ত এবং সহজ মাধ্যম নিয়ে আলোচনা করব। যেখান থেকে আপনারা সহজেই ইউটিউবে প্রচুর পরিমানে আয় করতে পারবেন আশা করি।

গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে ইউটিউবে টাকা ইনকাম

যখন আপনার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন অন হয়ে যাবে তখন, আপনারা চাইলেই গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারেন। এই গুগল এডসেন্স থেকে আপনারা বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন দেখিয়ে ইনকাম করতে পারেন। এই কাজটি করার জন্য সর্বপ্রথম আপনাকে জিজ্ঞাসা করতে হবে সেটা হল

আপনি কে গুগল এডসেন্স সে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য আপনার পার্সোনাল এনআইডি কার্ড অনুযায়ী কিছু তথ্য লাগবে। এনআইডি কার্ড অনুযায়ী কিছু তথ্য দিয়ে সহজেই আপনারা একে এডসেন্স একাউন্ট তৈরী করে নিতে পারবেন।

তারপর কিছুদিনের ভিতরেই আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট অ্যাপ্রুভ হয়ে গেলে,,,এই এডসেন্স থেকে আপনারা বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওতে দেখাতে পারেন। এই বিজ্ঞাপন গুলো আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওতে যারা দেখবে সেখান থেকে আপনার ইনকাম আসবে।

তাই আপনারা চাইলেই এই সহজ মাধ্যম বা পদ্ধতি অবলম্বন করে সহজে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করতে পারবেন আশা করি।এখন হয়তো আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে কিভাবে আমরা টাকা উত্তোলন করব।তো চলুন এবার আমরা জেনে নেই কিভাবে টাকা উত্তোলন করা যায়?

গুগল এডসেন্স থেকে টাকা উত্তোলন করার উপায়?

এখন আপনি যদি গুগল এডসেন্স থেকে টাকা উত্তোলন করতে চান তাহলে, আপনার গুগোল অ্যাডসেন্সে সর্বপ্রথম 10 ডলার থাকতে হবে। এবং তারপর আপনাকে আপনার এড্রেসটি ভেরিফাই করতে হবে গুগোল অ্যাডসেন্সে। গুগোল অ্যাডসেন্সে আপনার এড্রেস ভেরিফাই হয়ে গেলে এই, তখনই আপনারা যেকোন ব্যাংক একাউন্ট অ্যাড করতে পারেন গুগোল অ্যাডসেন্সে।

তারপর আপনাকে গুগোল অ্যাডসেন্সে আরো ইনকাম করতে হবে। ইনকাম করতে করতে যখন আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্টে 100 ডলার জমা হবে তখন, গুগোল সেই মাসের শেষের দিকে আপনার ব্যাংক একাউন্টে টাকা টেনেস্পার করে দিবে। ঠিক এভাবে করেই আপনারা সরাসরি গুগল এডসেন্স থেকে টাকা উত্তোলন করতে পারবেন আশা করি।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইউটিউব এর টাকা ইনকাম

বর্তমান সময়ে টাকা ইনকাম করার সবচেয়ে সহজ এবং বিশ্বস্ত মাধ্যম হলো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। যে কেউ চাইলেই অনলাইনে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম করতে পারে। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম করার জন্য, তেমন কোনো যোগ্যতা দক্ষতা অথবা বয়সের প্রয়োজন হয় না।এবং অনলাইনে আয়ের সবচেয়ে সহজ মাধ্যম হলো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয়।

আপনি যদি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইউটিউব এর মাধ্যমে ইনকাম করতে চান তাহলে,সর্বপ্রথম আপনাকে কোন ওয়েবসাইটে বা প্ল্যাটফর্মের যুক্ত হতে হবে।এবং সেটা যেন অবশ্যই বিশ্বস্ত এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করার সুযোগ দেয়। তাহলেই আপনারা নিঃসন্দেহে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম শুরু যেভাবঃ ধরুন আপনি একটি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং প্রোগ্রামে যুক্ত হয়েছেন। তখন সে কোম্পানি বা প্ল্যাটফর্ম আপনাকে একটি এফিলিয়েট লিংক প্রদান করবে। এখন আপনার কাজ হল এই এফিলিয়েট লিংক টি নির্দিষ্ট গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দেওয়া।

যদি কোনো গ্রাহক আপনার দেওয়া লিংকে ক্লিক করে তাদের কোম্পানি থেকে কোন কিছু ক্রয় করে তাহলে, ওই কোম্পানি থেকে আপনার কিছু কমিশন আসবে।এবং এভাবে করে আপনারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করতে পারবেন।এখন প্রশ্ন হল ইউটিউব এর মাধ্যমে কিভাবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করবো?

তার জন্য আপনার অ্যাফিলিয়েট লিংকটি আপনার ইউটিউবে প্রচার করতে হবে। যত ভালোভাবে আপনি ইউটিউবে প্রচার করবেন ততই আপনি গ্রাহক পাওয়ার সম্ভাবনা পাবেন। ধরুন আপনার ইউটিউব চ্যানেল থেকে আপনার দেওয়া এফিলিয়েট লিংক এ ক্লিক করে তাদের কোম্পানি থেকে কোন কিছু ক্রয় করেছেন।

এভাবে করে যতবার আপনার লিঙ্ক এ ক্লিক করে কোন গ্রাহক তাদের কোম্পানি থেকে, কিছু পণ্য অথবা প্রডাক্ট ক্রয় করবে ততোই আপনারা কমিশন পেতে থাকবেন।যেভাবে করেই আপনারা ইউটিউব এর মাধ্যমে সহজেই এফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন আশা করি। এখন হয়তো প্রশ্ন আসতে পারে কিভাবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা উত্তোলন করা যায় সেটা!

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা উত্তোলন করার উপায়?

আপনি যদি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার পর টাকা উত্তোলন করতে চান তাহলে,আপনার মূল ব্যালেন্সে নির্দিষ্ট পরিমান টাকা থাকতে হবে। তাহলে আপনারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা উত্তোলন করতে পারবেন। এক এক রকম কোম্পানি এক এক রকম পেমেন্ট সিস্টেম চালু করে রাখে।

কোন কোম্পানি মাত্র 50 ডলার হলেই টাকা উত্তোলনের সুযোগ দিয়ে থাকে। আবার অনেক কোম্পানি 100 ডলার হলে টাকা উত্তোলনের সুযোগ দেয়।তাই নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না কত টাকা হলে আপনারা টাকা উত্তোলন করতে পারবেন।তবে টাকা উত্তোলনের পুরো সিস্টেমটা নির্ভর করবে আপনার কোম্পানি অথবা ওয়েবসাইটের উপর।

বর্তমান সময়ের যত অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম ওয়েবসাইট বা প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। সেখানে বেশিরভাগ কম্পানি যেকোনো দেশের ব্যাংক একাউন্ট অ্যাড করার সুযোগ দিয়ে থাকে। অন্যান্য ব্যাংক একাউন্ট দিক বা না দিক কিন্তু ব্যাংক অ্যাকাউন্ট অবশ্যই দিয়ে থাকে।তাই আপনারা চাইলে, নির্দিষ্ট পরিমাণ অ্যামাউন্ট আপনার অ্যাকাউন্টে জমা হলে, নিজের দেশের ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করে নিতে পারবেন আশা করি।

স্পন্সর বিজ্ঞাপন দেখিয়ে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম

অনলাইনে স্পন্সর বিজ্ঞাপন খুবই জনপ্রিয় একটি পদ্ধতি টাকা আয় করার জন্য। যে কেউ চাইলে তাহার ইউটিউবে স্পন্সর বিজ্ঞাপন দেখে টাকা ইনকাম করতে পারে।তবে youtube-এ স্পন্সর বিজ্ঞাপন দেখে টাকা ইনকাম করার জন্য, আপনার ইউটিউব চ্যানেলের সর্বনিম্ন পাঁচ লাখ সাবস্ক্রাইব থাকতে হবে।

তাহলে আপনারা স্পন্সর বিজ্ঞাপন দেখে টাকা ইনকাম করার সুযোগ পাবেন। এজন্য সর্বপ্রথম আপনাকে কোন কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করতে হবে।যদিও আপনার চ্যানেল টি 500000 সাবস্ক্রাইভ হলে এমনিতেই কোম্পানিরা,,, আপনার সাথে যোগাযোগ করবে। স্পন্সর বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য। তাদের থেকে স্পন্সর বিজ্ঞাপন গুলো না নেওয়ার পর,,,

আপনার কাজ হলো এই স্পন্সর বিজ্ঞাপন গুলো আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওতে দেখানো। এখন আপনার এই স্পন্সর বিজ্ঞাপন যত লোক দেখবে ততো আপনার ইনকাম আসতেই থাকবে। ঠিক এভাবেই করে আপনারা স্পন্সর বিজ্ঞাপন ইউটিউব এর মাধ্যমে দেখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন কিভাবে স্পন্সর বিজ্ঞাপন গুলো ইউটিউব এর মাধ্যমে দেখিয়ে ইনকাম করা যায় সেটা!

আর্টিকেল সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কিছু কথা

বন্ধুরা এতক্ষণে আমরা,,, জানলাম কিভাবে ইউটিউব থেকে সহজে ইনকাম করা যায়।এবং ইউটিউব থেকে ইনকাম করার কয়েকটি সহজ ও জনপ্রিয় পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করেছি।তবে এখানে প্রত্যেকটি কাজের জন্য নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম-নীতি রয়েছে। এই নিয়ম-নীতিগুলো আপনাকে মেনে কাজ করতে হবে।

একদিকে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার নিয়ম নীতি আপনাকে মেনে কাজ করতে হবে।অন্যদিকে অন্যান্য পদ্ধতি অবলম্বন করে টাকা আয় করার নিয়ম নীতি মেনে কাজ করতে হবে। তাহলে আপনারা ইউটুবে প্রচুর পরিমানে আয় করতে পারবেন। বর্তমান এই সময়ে এই পদ্ধতিগুলো অবলম্বন করে,

ইউটিউবে প্রচুর পরিমাণে টাকা আয় করা যায়। অনেক ইউটিউবার রয়েছে যারা প্রতিমাসে ইউটিউব থেকে 10 লাখ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারে। যদিও শুনতে অবাক লাগছে তবে বাস্তবে এটাই সত্য। আপনি যদি সৎ এবং পরিশ্রমী ও সততার সাথে কাজ করেন তাহলে, অবশ্যই আপনি সফলতার মুখ খুব শীঘ্রই দেখতে পারবেন।

আজকে আমরা যে পদ্ধতি গুলো নিয়ে step-by-step আলোচনা করেছি,,,এগুলো কাজে লাগিয়ে ইউটিউব থেকে সহজেই হাজার হাজার ডলার আয় করা সম্ভব। তাছাড়া এই পদ্ধতি গুলো প্রায়ই অনেক বছর ধরে বিশ্বস্ততার সাথে এগিয়ে আসছে।তাই আপনারা নিঃসন্দেহে এই পদ্ধতিগুলো কাজে লাগিয়ে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

উপরোক্ত আলোচনা থেকে আমরা বলতে পারি,,, এখন আপনারা চাইলে সহজেই ইউটিউব থেকে এই পদ্ধতি অবলম্বন করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।তবে তাদের প্রত্যেকটি কাজের নির্দিষ্ট নিয়ম নীতি এবং আপনাকে সততা ও পরিশ্রমের কাজ করতে হবে। আশা করি তাহলে আপনারা সহজে ইউটিউব থেকে প্রচুর পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আর্টিকেল এর শেষ কথা

প্রিয় বন্ধুরা, আজকের আর্টিকেল থেকে আমরা জানতে পারলাম বা শিখতে পারলাম,,, ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার কয়েকটি সহজ ও বিশ্বস্ত উপায় নিয়ে বিস্তারিত। যদিও এই সম্পর্কে আমরা স্টেপ বাই স্টেপ বিস্তারিতভাবে আপনাদেরকে জানানোর চেষ্টা করেছি। তবুও যদি কোনো প্রশ্ন অথবা মতামত থাকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

আমাদের আজকের আর্টিকেলটি পড়ার জন্য সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। এই আর্টিকেলটি ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। আজকের আর্টিকেলটি এ পর্যন্তই। সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন এবং নিরাপদে থাকুন। দেখা হবে আবার অন্য কোন আর্টিকেলে। আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহু।

Comments

You must be logged in to post a comment.

Related Articles
Recent Articles

আপনার জন্য আরও লেখা: