পি. টি. সি. সাইট থেকে মাসে লাখ টাকা ইনকাম করার জনপ্রিয় 5 টি পিটিসি সাইট।

অনলাইনে আয় করা যেমন সহজ আবার অন‌্যদিকে তেমন কঠিনও, আপনি সময় নিয়ে ভালো কাজ শিখতে পারলে আপনি বেশি বেশি ইনকাম করতে পারবেন। আর আপনি যদি চান অনলাইনে পার্টটাইম কাজ করবেন আপনি সেটাও করতে পারবেন।

এরজন্য আপনাকে বেশি কিছু জানতে হবেনা, শুধুমাত্র ইন্টারনেট সম্পর্কে প্রাথমিক ধারনা থাকতে হবে।

আজকে আমি আপনাদের সাথে এমনই কয়েকটি অনলাইন পিটিসি সাইট সম্পর্কে আলোচনা করব। যেখানে আপনি নিয়মিত ও প্রতিদিন এড দেখার মাধ‌্যমে মাসে লাখ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

PTC এর ফুল মিনিং হচ্ছে “Paid to click”। এখানে আপনাকে প্রতি ক্লিকের জন্য পেইড করা হবে, পি.টি.সি হল এমন এক ধরনের কাজ যেখানে ক্লিক করেই আয় করা যায়। পি.টি.সি সাইটগুলো শুধুমাত্র ক্লিকের জন্য আপনাকে টাকা দেবেনা, এই ক্লিকের মাধ্যমে তারা বিভিন্ন কোম্পানির মার্কেটিং করে থাকে।

তো চলুন বন্ধুরা কথা না বাড়িয়ে মূল আলোচনায় যাই।

আপনার জন্য আর লেখা

সেরা ও জনপ্রিয় সব পিটিসি সাইট:

পিটিসি সাইটগুলোর মধ‌্যে সব থেকে সেরা পিটিসি সাইট হচ্ছে Neobux.  Neobux কে পিটিসি সাইটের জনক বলা হয়।আপনি গুগলে সার্চ দিয়ে দেখলে জানতে পারবেন কোন সাইটগুলো সব থেকে সেরা বা জনপ্রিয়। Neobux সহ আরো কিছু পিটিসি সাইট সম্পর্কে আজ আপনাদের সাথে আলোচনা করব।

1. Neobux:

Neobux এ বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে ইনকাম করা যায়, এই সাইটটি চালু হয়েছিল ২০০৮ সালে। এটি একটি আমেরিকান সাইট, যাদের রয়েছে লক্ষ লক্ষ ব্যবহারকারী। অনলাইন ইনকাম সম্পর্কে যদি আপনার কোনো ধারণা নাও থাকে এবং আপনি যদি প্রতিদিন ১ ঘন্টা কাজ করে মাসে ২-৩ হাজার টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে এই সাইটটি আপনার জন্য।

রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম:

প্রথমে এই সাইটে রেজিষ্ট্রেশন করুন। রেজিষ্ট্রেশন ফরম পূরণ করার জন‌্য আপনার ইউজার নেম, পাসওয়ার্ড, ইমেল, জন্মসাল দিয়ে দিন এবং ইমেজ ভেরিফিকেশন করে চেক বক্স দুটি মার্ক করে continue বাটনে ক্লিক করে দিন।

এরপর আপনার ইমেইলে একটা ভেরিফিকেশন কোড যাবে সেটা বসিয়ে দিলেই আপনার একাউন্ট এক্টিভ হয়ে যাবে।এবার ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগ-ইন করুন।

কাজ করার নিয়ম:

রেজিষ্ট্রেশন এবং লগইন করা হলে আপনার ড্যাসবোর্ডে প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ টা করে এড আসবে। প্রতিটা এড এ ক্লিক করার মাধ্যমে আপনার একাউন্টে 0.001$ যোগ হবে, শুরুর দিকে ৮-১০ টা এড আসলেও আপনার কাজের বয়স যত বাড়বে তত বেশি এড আসবে।

প্রথম অবস্থায় ইনকাম একটু কম হলেও আপনি যদি এই সাইটে নিয়মিত লেগে থাকেন এবং যদি কিছু রেফার জোগার করতে পারেন তাহলে অবশ্যই ভালো পরিমান টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি চাইলে এখান থেকে রেফার কিনে কাজ করতে পারবেন।

উইথড্রো করবেন যেভাবে:

এই সাইটে কাজ করার পর আপনার একাউন্টে যখন ১ ডলার হবে তখন paypal, paynoyer অথবা bitcoin এর মাধ্যমে আপনি উথড্রো দিতে পারবেন, সব থেকে সহজ মাধ্যমে হচ্ছে বিটকয়েন যেটাতে উথড্রো দিলে খুব সহজেই বিকাশ, রকেট অথবা নগদ একাউন্টের মাধ্যমে একচেঞ্জ করা যায়।

02. Ojooo wad:

Ojooo wad ও একটি পিটিসি সাইট। এই সাইটটি চালু হয়েছিলো ২০১০ সালে। বর্তমানে এই সাইটে রেজিষ্ট্রেশনকৃত সদস্যর সংখ্যা প্রায় চার কোটি। এখানে কাজ করতে আপনার কোনো পূর্ব অভিজ্ঞতার প্রয়োজন নেই, শুধুমাত্র বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন, ওয়েবসাইট ছাড়াও এদের নিজস্ব একটি অ্যাপস আছে আপনি চাইলে অ্যাপসের মাধ্যমে ও কাজ করতে পারবেন।

রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম:

এই সাইটে কাজ করতে হলে অবশ্যই আপনাকে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে রেজিষ্ট্রেশন ফরমে আপনার জিমেল,  ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে, ক্যাপচা পূরণ করে I read and accept the general terms and conditions and the data protection of Ojooo বাটনটি yes করে দিয়ে Register এ ক্লিক করলেই আপনার এই সাইটে রেজিষ্ট্রেশন করা হয়ে যাবে।

কাজ করবেন যেভাবে:

রেজিষ্ট্রেশনের পর আপনার ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন। লগইন করার পর paid to click ads নামে একটি অপশন পাবেন সেখানে বিভিন্ন এড থাকে সেই এডস গুলোতে ক্লিক করার মাধ্যমে আপনি ইনকাম করতে পারবেন। প্রথমদিকে ১০-১২ টা এডস আসবে কিন্তু পরে আপনার কাজের বয়স যত বাড়বে তত বেশি এডস আসবে।আর আপনি তত বেশি ইনকাম করতে পারবেন।

এছাড়াও আরো কিছু ইনকামের ব্যবস্থা আছে যার মধ‌্যে রেফারেন্স হচ্ছে অন্যতম। আপনি আপনার রেফার লিংক বন্ধুদেরর সাথে শেয়ার করে তাদেরকে জয়েন করিয়ে ইনকাম করতে পারবেন। আপনার রেফার যত বেশি হবে আপনিও তত বেশি ইনকাম করতে পারবেন।

উইথড্রো করবেন যেভাবে:

আপনার ইনকাম করা টাকার সংখ্যা যা-ই হোক না কেনো যখন আপনার ১০০ এডসে ক্লিক সম্পূর্ণ হবে তখনি আপনি এই সাইট থেকে বিটকয়েন বা ইথিরিয়াম এর মাধ্যমে উইড্রো নিতে পারবেন এবং পরে সেই বিটকয়েন মানি এক্সচেঞ্জ সাইট থেকে টাকা এক্সচেঞ্জ করে বিকাশ, রকটে অথবা নগদ একাউন্টে আনতে পারবেন।

এই সাইটে কাজ করে আপনি মাসে ৮-১০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। কিন্তু প্রথম দিকে আপনার ইনকাম একটু কমই হবে। তবে আপনি যদি ধৈর্য সহকারে ৬ মাস কাজ করেন এবং এই ৬ মাসের মধ্যে যদি ১০০০-১২০০ রেফারেন্স আনতে পারেন, আর তারা যদি আপনার রেফারে কাজ করে তাহলে আপনি এখান থেকে মাসে ৮-১০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

03. Gpt planet:

Gpt planet ও একটি পিটিসি সাইট। এটি চালু হয়েছিল ২০১০ সালে। এখানেও অনেক ইউজার প্রতিদিন কাজ করে থাকে।

রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম:

আপনি যদি এই সাইটে কাজ করতে চান তাহলে অবশ্যই আগে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। রেজিষ্ট্রেশন ফরমে আপনার নাম, আপনার ইউজার নেম, ই-মেইল, পাসওয়ার্ড ও জন্ম তারিখ দিয়ে ইমেজ ভেরিফিকেশন করে terms of service বক্সে টিক মার্ক দিয়ে register বাটনে ক্লিক করলেই আপনার একাউন্ট করা হয়ে যাবে, এখানে কোনো প্রকারই-মেইল ভেরিফাই করা লাগে না।

রেজিষ্ট্রেশন হয়ে গেলে আপনার ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করলে সরাসরি আপনার gpt planet একাউন্টের ড্যাসবোর্ডে নিয়ে যাবে, সেখান থেকে view ads এ ক্লিক করুন।

কাজ করবেন যেভাবে:

এখানে আপনার সামনে অনেকগুলো এডস আসবে এবং সেই প্রত্যেকটা এড এ ক্লিক করার মাধ্যমে আপনি ইনকাম করতে পারবেন। এখান থেকে আপনি রেফারের মাধ‌্যমে ও ইনকাম করতে পারবেন।

04. Clixsense:

যতগুলো বিশ্বস্ত পিটিসি সাইট রয়েছে তার মধ্যে Neobux, Clixsense  ও Ojooo.com সেরা তিনের মধ্যে। তবে নির্দিষ্ট করে বলা কঠিন কে প্রথম, কে দ্বিতীয় আর কে তৃতীয়।

রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম:

এই সাইটে কাজ করতে হলে প্রথমে আপনাকে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন ফরমে আপনি আপনার নাম, জিমেইল, ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে Signup Now বাটনে ক্লিক করুন। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এখন Create Account বাটনে ক্লিক করুন। আপনি যে জিমেইল দিয়েছেন সেই মেইলে একটি কনফারমেশন মেসেজ যাবে।

এটিতে একটি লিংক থাকবে যেটিতে ক্লিক করে আপনার একাউন্ট টি একটিভ হয়ে যাবে। কোনকারনে এটি আপনার জিমেইলের ইনবক্সে না পেলে আপনার Spam ফোল্ডার চেক করুন।

একাউন্ট কনফার্ম করার পর আপনার Clixsense একাউন্টে লগইন করুন। লগইন করার পর আপনার প্রোফাইলে গিয়ে আপনার প্রোফাইলের সকল তথ্য সঠিকভাবে দিয়ে দিন। আপনি PayPal, PayToo, Payza এই তিনটির মধ্যে যেকোনো একটিতে যদি একাউন্ট থাকে তাহলে যে ই-মেইল দিয়ে এই অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন সেই ইমেইল এখানে দিন।

আর যদি না থাকে তাহলে আপনি যে ই-মেইল দিয়ে এই সাইটে রেজিস্ট্রেশন করেছেন সেই ই-মেইল দিয়ে দিন পরবর্তীতে পরিবর্তন করে নিবেন। 

কাজ করার নিয়ম:

এই সাইটে আপনি বিজ্ঞাপন বা Ad দেখে ইনকাম করতে পারবেন। এড দেখার জন‌্য প্রতিটি এড এর নীল বারের উপর ক্লিক করুন। প্রতি এড এ ক্লিক করার পর আপনি চারটি করে ইমেজ ক্যাপচা দেখতে পাবেন, এরমধ্যে একটি বিড়ালের ছবি দেখতে পাবেন। এটির উপর ক্লিক করুন। এরপর আপনার একাউন্টে ডলার জমা হয়ে যাবে।

তো এবার তো শিখলেন কিভাবে এড দেখে আয় করা যায় এই সাইটে। কত আয় হল তার দিকে না তাকিয়ে প্রথম ছয়মাস এই সাইটে এড দেখে যান। দুই ডলার হলে আপনার পায়জা বা পেপাল  একাউন্টে ডলার উইথড্র দিয়ে নিতে পারেন।এরা ইনস্ট্যান্ট পে করে।

টাস্ক পূরণ করার মাধ্যমে আয়:

ক্লিক্সসেন্সের সবচেয়ে লাভজনক উপায় হচ্ছে টাস্ক সম্পূর্ণ করা। এইখানে আপনি অনেক ধরনের ছোট ছোট কাজ পাবেন যেগুলো আপনি খুব সহজেই করতে পারবেন কঠিন কোনো কাজ না যেমন দুইটি সাইটের তুলনা করা। স্পষ্ট চিত্র নিয়ন্ত্রণ করা, সার্ভে সম্পূর্ণ করা। একাডেমিক গবেষণা মূলক সার্ভে সম্পূর্ণ করা। কীওয়ার্ড তৈরি করা ইত্যাদি মজার ব্যাপার হচ্ছে ক্লিক্সসেন্সে এমন অনেক সদস্য আছে যারা শুধু টাস্ক পূরণ করার মাধ্যমেই আয় করছে।

অফার সম্পন্ন করে আয়:

ক্লিক্সসেন্সে অনেক অফার আসে এবং এই অফার শুধু চেক করলেই আয় করা যায়। অফারগুলো হচ্ছে যেমন আপনাকে কোনো অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করার জন্য বলা হতে পারে, কোনো সামাজিক যোগাযোগের সাইটের ভিডিও দেখার জন্য বলা হতে পারে অথবা অনলাইন রেডিও শুনার জন্য বলা হতে পারে ক্লিক্সসেন্সে অফারের পেইজে আপনি আপনার অফার চেক করতে পারবেন

Referrals এর মাধ্যমে আয়:

আপনি যত বেশি Referrals করতে পারবেন আপনার তত বেশি আয় হবে। ১ জন রেফার করলে আপনি প্রতিদিন পাবেন তার আয় এর ১০%। এখানে আপনি যদি আরও বেশি রেফারেন্স বানাতে পারেন তাহলে আপনার আয় আরও বৃদ্ধি পাবে।

05. Offers Bux:

এখানে প্রতিদিন কমপক্ষে ৪০-৫০ টা এড থাকে, এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি ১ সেন্ট হলেই স্ক্রিল, অ্যাডক্যাশ, ক্রিপ্টোকারেন্সি ওয়ালেট, পারফেক্ট মানি, অথবা পেপাল একাউন্টের মাধ্যমে পেমেন্ট নিতে পারবেন।

আজ এ পর্যন্ত। সবাইকে সময় নিয়ে পোস্টটি পড়ার জন‌্য ধন‌্যবাদ। আল্লাহ্ হাফেজ।

আপনার জন্য আর লেখা

Related Articles
Comments

You must be logged in to post a comment.