মোবাইল দিয়ে ঘরে বসে অনলাইনে আয় করার ৪টি উপায়।

Earning : ৳68.800

 মোবাইল দিয়ে ঘরে বসে অনলাইনে সহজেই আয় করার ৪টি উপায়। কোনো টাকা খরচ করা ছাড়াই। 

আমাদের চ্যানেলটি সাবসক্রাইব করুন

আপনি কি অনলাইনে ইনকামের পথ খুজতে খুজতে দিশেহারা হয়ে গেছেন কিছু অসৎ মানুষের কারণে যারা কিনা আপনাকে বিভিন্ন অনলাইনে টাকা ইনকাম করার কথা বলে আপনাকে ভুল পথ দেখিয়েছে।

এখন হইতো আপনারা যারা একনো পর্যন্ত সেই মানুষ গুলোর হাতে বা দেখা পাননি তারা বলবেন কীভাবে একজন মানুষকে টাকা ইনকাম করার কথা বলে ভুলপথ দেখায়,

তাদের জন্য বলতেছি যাতে করে ভবিষ্যতে আপনিও যাতে সেই মানুষগুলোর সাথে দেখা পেলেও চিনতে পারেন। 

১ নাম্বার শ্রেণীর বাটপার।

 তারা আপনাকে কিছু ক্লিক বেইট সাইট বা Apps দেখাবে বলবে এখানে আপনারা এড দেখে , ভিডিও দেখে, স্পিন করে ইনকাম করতে পারবেন। 

বিশেষ করে এই সব কাজ বিভিন্ন apps এর মধ্যে করে বিভিন্ন সাইটেও করে সুতরাং এই কাজ গুলো কেও আপনাকে ভিডিও দেখি হোক অথবা এমনে বলোক আপনি এই ভুল পথে পা দিবেন না যদি দেন আপনার সময় ও টাকা দুইটাই নষ্ট হবে।  

২ নাম্বার শ্রেণীর বাটপার 

এই শ্রেণীর লোকজন আপনাকে বিভিন্ন কোর্স বিক্রি করতে চাইবে তবে বলে রাখা ধরকার কোর্স বিক্রি করা খারাপ না যদি না সেই কোর্স করে আপনার লাইফ চেইঞ্জ করা যায়। 

তবে আজকাল অনলাইনে এমন সব কোর্স বিক্রি করতে দেখা যায় যেই কোর্স গুলো করে না পারবেন ইনকাম করতে না হবে আপনার কোনো স্কিল তাহলে এখন বলতে পারেন সেই কোর্স গুলো কি কি বিষয়ে হয় তাহলে আপনাকে বলছি ।

প্রথমত- আপনি কোনো প্রকার CPA মার্কেটিং এর কোর্স করবেন না। কেননা এইটা একটা বাটপারি স্কিল যেটার মূল কাজটা হলো মানুষকে দোকা দেওয়া।

CPA মানে Cost Per Action অর্থাৎ আপনি cpa marketer হিসাবে কাওকে কোনো একটা action নিতে পারলে আপনি টাকা পাবেন। 

যেমন ধরুন আপনি একটা লিঙ্ক কাওকে শেয়ার করবেন সেখানে বলবে এই লিঙ্কটা ক্লিক করুন আপনি এক লাখ টাকা পাবেন। 

তখন কেও লিঙ্কটা ক্লিক করলে সেখানে অন্য কিছু দেখায় এটা পোরাই বাটপারি  আরো অনেক খারাপ দিক আছে আমি আর্টিকেলটা লম্বা হয়ে যাবে যার কারণে সেগুলা এখানে বলতেছি না।

দ্বিতীয়ত- কেও যদি বলে ডাটা এন্ট্রি করে মাসে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করা যায় আপনি এই ডাটা এন্ট্রি কোর্সটি করুন। এই সব বাটপার থেকেও সাবধান থাকবেন।

আমি এই আর্টিকেলে আপনাকে দেখাবো কীভাবে সহজেই টাকা ইনকাম করা যায় কোনো রকম বাটপারির সম্মোখিন না হয়ে। 

সুতরাং আরা কথা না বলে চলোন আসল কথাগুলো শুরুকরা যাক। 

অনলাইনে আয় করার এই ৪টি উপায়ের মধ্যে আমি সবচেয়ে যে উপায় গুলো টাকা ইনকাম করার ক্ষেত্রে সহজ সেই পদ্ধতিগুলো আমি আগে বলবো। সুতরাং আপনি ধরে নিবেন যে কাজ গুলো লিস্টে উপরে থাকবে সেগুলো থেকে ইনকাম করা সবচেয়ে সহজ। 

১।ব্লগিং 

blogger

নাম শুনে হয়তো অনেকেই ভয় পেয়ে গেছেন আসলে ব্লগিং নাম শুনতে যতটা কঠিন শুনাই ততটা কঠিন নয়। আপনার কোনো একটা স্কিল আছে বা কোনো বিষয়ে আপনার জ্ঞান আছে সেই বিষয় নিয়ে অনলাইনে লিখার নাম ব্লগিং।

এখন সেটা হতে পারে গ্রাফিক ডিজাই, কীভাবে ভালো রেজাল্ট করতে হয় ইত্যাদি। ধরুন আপনার কোনো বিষয় সম্পর্কে জ্ঞান নাই তাহলেও আপনি করতে পারেন প্রশ্ন হতে পারে কীভাবে ?

তার উত্তর হলো আপনি যে বিষয় নিয়ে পড়ালেখা করতে ভালোবাসেন সেই বিষয় নিয়ে আগে পড়ালেখা করে আপনার মতো করে আপনি অনলাইনে লিখে ফেলবেন।

সেটা হতে পারে - কীভাবে ভালোবাবে পড়ালেখা করে ভালো রেজাল্ট করতে হয়, গ্রাফিক ডিজাইন, রাইটিং, ভাষা শিক্ষা ইত্যাদি যে কোনো কিছু হতে পারে। 

এখন হইতো আপনি চিন্তা করছেন কীভাবে ব্লগিং শুরু করে এটাতো আমি জানি না। তার উত্তর হলো আপনি এইটা নিয়ে YouTube এ এই বিষয়ে সার্চ দিতে পারেন।

তাছাড়া আপনি আমাকে ফলো করে সাথে থাকতে পারেন পরবর্তীতে এইতা নিয়ে একটা আর্টিকেল পাবলিশ করবো।

২। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

affiliate Marketing

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলতে বোঝাই অন্য কারো প্রোডাক্ট আপনি বিক্রি করে দিবেন যার বদলতে যার প্রোডাক্ট আপনি বিক্রি করে দিবেন। 

সে আপনাকে একটা কমিশন দিবে হতে পারে ১০% অথবা ২০% ইত্যাদি যে কোনো পারসেন্ট হতে পারে।

এইখানে প্রোডাক্ট বলতে যেকোনো প্রোডাক্ট হতে পারে যেমন পিসিক্যাল প্রোডাক্ট অথবা ডিজিটাল প্রোডাক্ট। 

এখন প্রশ্ন হলো পিসিক্যাল প্রোডাক্ট কি? আরা ডিজিটাল প্রোডাক্ট কি? তার উত্তরে বলবো পিসিক্যাল প্রোডাক্ট মানে যে জিনিস বা প্রোডাক্ট গুলো আমরা দৈনন্দিন কাজে ব্যবহার করি। 

যেমনঃ টিভি, প্রিজ, মোবাইল, ইত্যাদি অর্থাৎ যে গুলো হাতে ছোঁয়া যায় সেগুলো পিসিক্যাল প্রোডাক্ট আর ডিজিটাল প্রোডাক্ট হলে যে গুলো হাতে ছোঁয়া যায় না। 

যেমন, অনলাইন কোর্স, ইবুক, যে কোনো সার্ভিস হতে পারে এসইও, ইমেইল মার্কেটিং ইতাদি যেগুলো বিভিন্ন কোম্পানি প্রোভাইড করে আপনি সেই সার্ভিস গুলো যারা চাই তাদের কাছে পৌছে দিবেন। 

ফলে তারা আপনাকে একটা কমিশন দিবেন। সাধারণত ডিজিটাল প্রোডাক্টের ক্ষেত্রে বেশি কমিশন পাওয়া যায়। আমি আপনাকে রিকমেন্ড করবো ডিজিটাল প্রোডাক্ট প্রমোট করতে কেননা এগুলোতে বেশি টাকা ইনকাম করা যায়। 

এখন প্রশ্ন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে কত টাকা ইনকাম করতে পারবেন? তার উওর হলো আপনার যত খুশি তত টাকা ইনকাম করতে পারবেন হতে পারে মাসে ১ লাখ অথবা ৫ লাখ তবে এটা আপনার উপর ডিপেন্ড করবে।

এটাই বলবো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনেক বেশি ইনকাম করা যায়। 

এখন প্রশ্ন আমি এই অ্যাফিলিয়েট সাইটগুলো পাবো কোথায়? তার উত্তর হলো আপনি গুগলে সার্চ দিলে অগনিত অ্যাফিলিয়েট সাইট পাবেন যারা আপনার মতো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটারদের খুজতেছে।

যেমন, সবচেয়ে বেশি সখ্যক অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার আছে Amazon। আপনি যদি দেশি সাইটে করতে চান তবে Daraz, BDShop ইত্যাদি বাংলাদেশি সাইট গুলোতে করতে পারেন।

৩।ফ্রিল্যান্সিং

freelancing

ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আজকাল দিনে কাওকে বোঝাতে হয় না এটা কি তবে আমি তারপরেও অনেকে আছে জানেন না তাদের জন্য বলছি। ফ্রিল্যান্সিং শব্দের অর্থ মুক্ত পেশা।

তারমানে এই পেশাটা স্বাধীন এখানে আপনাকে কারো কমান্ডে থাকতে হবে না। আপনিই আপনার বস। ধরুন আপনি একটা কাজ পারেন ধরুন সেটা হলো গ্রাফিক ডিজাইন। 

এখন একজন মানুষের একটা লগো ধরকার সে আপনার কাছে আসবে সেই লগোটি বানাতে তার বদলতে আপনি তার কাছ থেকে টাকা নিবেন সাধারণত এটাকেই ফ্রিল্যান্সিং বলে।

এখন আপনার প্রশ্ন আমি ফ্রিল্যান্সিং করতে কি কাজ শিখতে পারি? তার উত্তরে - 

আপনি যে কোনো কাজ শিখতে পারেন যেমনঃ গ্রাফিক ডিজাইন , ওয়েব ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং ইত্যাদি যেকোনো স্কিল যেটা আপনার ভালো লাগবে। 

এখন আরেকটা প্রশ্ন  কোথায় আমি ফ্রিল্যান্সিং করবো? তার উত্তরে- 

এখন ফ্রিল্যান্সিং করার মার্কেটের অভাব নাই আপনি চাইলে ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে পারেন অথবা বাংলাদেশি মার্কেটপ্লেসেও ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন।

যেমনঃ কিছু ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেস হলো: Fiverr, Upwork, Freelancing.com, peopleperhour ইত্যাদি আপনি গুগলে সার্চ দিলে অসখ্য পেয়ে যাবেন। 

৪। জে আইটি ব্যবহার করে। 

আপনি যদি উপরের কোনোটাই করতে না চান তাহলে এইটা আপনার জন্য বেস্ট অপশন হতে পারে।

ধরুন আপনার কোনো একটি বিষয়ে স্কিল আছে কিন্তু কীভাবে ব্লগিং বা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করবেন সেটা জানেন না তাহলে আপনি জে আইটিতে আপনার সেই স্কিল নিয়ে আর্টিকেল লিখতে পারেন। 

সেখানে আপনি Per view অনুযায়ী ইনকাম করতে পারবেন তাছাড়া আপনি আর্টিকেলটি পাবলিশ করার সাথে সাথে ১০ থেকে ১০০ টাকা পেয়ে যাবেন।

কিন্তু আর্টিকেল পাবলিশ হওয়ার বা আপ্প্রভ হওয়ার কিছু শর্ত আছে আপনি সেগুলো একটু দেখে নিবেন। তাহলে আপনি সেখান থেকে ও ইনকাম করতে পারবেন। আপনি এই লিঙ্কটা ক্লিক করে সেখানে Register করুন। 

https://blog.jit.com.bd/ref/Mainu

register করার সাথে সাথে আপনি ১০ টাকা পেয়ে যাবেন। 

পরবর্তীতে আর বিভিন্ন অনলাইনে ইনকাম করার উপায় জানতে আমাকে ফলো করুন। 

Related Articles
Comments

You must be logged in to post a comment.

লেখক সম্পর্কেঃ

আসসালামুআলাইকুম। আপনাকে আমার প্রোফাইলে স্বাগতম। আমি একজন ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপার ও কনটেন্ট ক্রিয়েটর হিসাবে অনলাইনে কাজ করি। আপনার এই ব্যপারে কোনো কিছু জানার থাকলে জিজ্ঞেস করতে পারেন। ধন্যবাদ

আপনার জন্য আরও লেখা: